বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯

ষষ্ঠবারের মতো ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শ্যু জিতলেন মেসি

ষষ্ঠবারের মতো ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শ্যু জিতলেন মেসি


ক্যারিয়ারে ষষ্ঠবারের মতো ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শ্যু জিতলেন আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি। গত মাসেই ফিফা বেস্ট প্লেয়ারের পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি। আর গত মৌসুমে লা লিগায় সবচেয়ে বেশি সংখ্যক গোল করে এবার জিতে নিলেন ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শ্যু। 


গত মৌসুমে লা লিগায় ৩৪ ম্যাচ খেলে ৩৬টি গোল করেছেন মেসি। তিনি পেছনে ফেলেছেন পিএসজি ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপ্পেকে। এমবাপ্পে তার থেকে ৩ গোল পিছিয়ে। এটি নিয়ে টানা তিন মৌসুম এই পুরস্কার জিতলেন বার্সা অধিনায়ক। এর আগে ২০১৫-১৬ মৌসুমে এই পুরস্কার জিতেছিলেন মেসির বার্সা সতীর্থ উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ। মেসি প্রথম এই পুরস্কার জিতেছিলেন ২০০৯-১০ মৌসুমে। 

এদিকে পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো এই পুরস্কার জিতেছেন মোট ৪ বার। আর লা লিগার বাইরে রোনালদোই একমাত্র ফুটবলার যে কিনা এই পুরস্কার পাওয়ার কৃতিত্ব গড়েছিলেন। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ২০০৭-০৮ মৌসুমে প্রথম এই পুরস্কার জিতেছিলেন তিনি।
কনিষ্ঠতম হিসেবে একদিনের ক্রিকেটে দ্বিশতরান যশস্বীর

কনিষ্ঠতম হিসেবে একদিনের ক্রিকেটে দ্বিশতরান যশস্বীর


লিস্ট-এ (ওয়ান ডে) ক্রিকেটে সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে দ্বিশতরানের নজির গড়লেন যশস্বী জয়সোয়াল। চলতি বিজয় হাজারে ট্রফিতে মুম্বইয়ের জার্সিতে এই রেকর্ড গড়লেন তরুণ ক্রিকেটার। 


আলুরের কর্ণাটক রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার মাঠে মুম্বইয়ের সঙ্গে খেলা ছিল ঝাড়খণ্ডের। সেখানেই কীর্তি গড়লেন যশস্বী। ১৫৪ বলে ২০৩ রানের যাশ্বভীর ইনিংস সাজানো ১২টা ওভার বাউন্ডারিতে। বিজয় হাজারের ইতিহাসে এর আগে কোনও ব্যাটসম্যান এক ইনিংসে এত ছক্কা হাঁকাতে পারেননি। সবমিলিয়ে লিস্ট-এ ক্রিকেটে সপ্তম ভারতীয় হিসেবে দুশত রান করলেন যশস্বী। ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটের তালিকায় তিনি চতুর্থ। দ্বিশতরানের জন্যই যশস্বীর লিস্ট-এ ক্রিকেটে ব্যাটিং গড় একশোরও উপরে পৌঁছে গেল। 


টিনএজার তারকার সঙ্গে অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ারের ১৪ বলে ৩১ রানের ক্যামিওতে ভর করে মুম্বই প্রথম ইনিংসে ৩ উইকেটের বিনিময়ে ৩৫৮ রান স্কোরবোর্ডে তোলে। ঝাড়খণ্ডের বোলিং বেশ শক্তিশালী। স্পিডস্টার বরুণ অ্যারণের সঙ্গে বোলিং আক্রমণে রয়েছেন ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যতম সফল মুখ শাহবাজ নাদিম। রয়েছেন যুব বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া অনুকূল রায়। এসবের তোয়াক্কা না করেই যশস্বী অবশ্য শাসন করে গেলেন কর্ণাটকের মাঠে।

চলতি বিজয় হাজারেতে এই নিয়ে দুজন ডাবল সেঞ্চুরি হাকালেন। কিছুদিন আগেই সঞ্জু স্যামসন কেরলের হয়ে গোয়ার বিপক্ষে লিস্ট-এ ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্বিতীয় দ্রুততম দ্বিশতরান করার সময়ে একগাদা রেকর্ড ভেঙেছিলেন। এই মাঠেই ১২ অক্টোবর সঞ্জু স্যামসন ১২৯ বলে ২১২ রানে রান করে গিয়েছিলেন।
মার্শকে ইডিয়ট বললেন অজিদের কোচ ল্যাঙ্গার

মার্শকে ইডিয়ট বললেন অজিদের কোচ ল্যাঙ্গার


দুই দিন আগে শেফিল্ড শিল্ডের ম্যাচে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরার পর হতাশায় দেয়ালে ঘুষি মারেন অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার মিচেল মার্শ। আর এই ঘুষিতে ডান হাত ভেঙে যায় তার। পরে পরীক্ষা করে জানা গেছে এই ইনজুরিতে প্রায় এক মাসের জন্য মাঠের বাইরে থাকতে হবে তাকে। আর মার্শের এমন কর্মকান্ডের জন্য তাকে ইডিয়ট বললেন অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার। 

গত ১৩ অক্টোবর মুখোমুখি হয়েছিল ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়া এবং তাসমানিয়া। ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলতে নেমেছিলেন মার্শ। ব্যক্তিগত ৫৩ রানে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। কিন্তু নিজের আউট হওয়াটা মেনে নিতে পারছিলেন না তিনি। আর এই হতাশায় ড্রেসিংরুমের দেয়ালে সজোরে ঘুষি মেরে বসেন তিনি। এতেই ভেঙে যায় তার ডান হাত। আর অনাকাংক্ষিত এই ইনজুরিতে শ্রীলঙ্কা এবং পাকিস্তান সিরিজ থেকে ছিটকে গেছেন তিনি। এদিকে মার্শের এমন উদ্ভট কান্ডে অসন্তুষ্ট অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার। 

এ ব্যাপারে মার্শ জানান, “তিনি আমাকে বলেছেন আমি আসলে একটা ইডিয়ট। তিনি আমাকে নিয়ে খুবই হতাশ। এরকম ঘটনা আসলে একবারই হয়। ভবিষ্যতে এমন কিছু আর হবে না।” 

নিজের কর্মকান্ডের জন্য নিজেই বিব্রত মার্শ। তিনি আরও জানান, “ঐ কাণ্ডটা আসলে আমার চরিত্রের সাথে যায় না। আমি এতোটা রাগও করিনা। আমি এই ঘটনায় খুবই হতাশ। আমি নিজের সতীর্থদেরও ডুবিয়েছে এসব করে। তবুও সবাই আমার পাশে থেকেছে। আমি সবার কাছে ক্ষমা চেয়েছি। এরকম কোনো ঘটনা ঘটাতে চাইনি আমি।”
খুলনা ছেড়ে সিলেটের হয়ে খেলবেন আফিফ হোসেন

খুলনা ছেড়ে সিলেটের হয়ে খেলবেন আফিফ হোসেন

শ্রীলঙ্কা সফর শেষে দেশে ফিরেই জাতীয় লিগে খেলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বাংলাদেশ ‘এ’ দলের ক্রিকেটাররা। শ্রীলঙ্কা সফরের কারণে প্রথম রাউন্ড না খেললেও দ্বিতীয় রাউন্ড খেলবেন তাঁরা। জাতীয় দলের বেশিরভাগ তারকা ক্রিকেটারই খুলনা বিভাগের। খুলনায় রয়েছেন সাকিব আল হাসান, আব্দুর রাজ্জাকের মত ক্রিকেটাররা। এদের মত আরও অনেক তারকা ক্রিকেটারই রয়েছেন এই অঞ্চল থেকে। সেই ভিত্তিতেই জাতীয় লিগ খেলেন ক্রিকেটাররা। প্রত্যেকবারই অন্য বিভাগের চেয়ে খুলনাতেই তারকা ক্রিকেটারদের মেলা থাকে।

দলে রয়েছেন ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেনের মত তারকা ক্রিকেটাররা। দ্বিতীয় রাউন্ডে যোগ হচ্ছেন আরও বেশ কজন তারকা ক্রিকেটার।

আবু জায়েদ রাহীর সঙ্গে আফিফ হোসেন ধ্রুব

শ্রীলঙ্কা সফর শেষে দ্বিতীয় রাউন্ডে খুলনার স্কোয়াডে যুক্ত হয়েছেন আফিফ হোসেন, এনামুল হক, নুরুল হাসান, মোহাম্মদ মিঠুনরা। এমনিতেই কম তারকা নেই খুলনা দলে। দ্বিতীয় রাউন্ডে আরও কজন তারকা ক্রিকেটার যোগ হওয়াতে কাকে রেখে কাকে একাদশে খেলাবেন সেটি নিয়েও পড়তে হবে সমস্যায়। এদের জায়গা দিতে ছাড়তে হয়েছে আগের রাউন্ডে খেলা বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারকে।


কায়েস, সৌম্য, মিঠুন, নুরুল, এনামুল, রাজ্জাক, তুষার ইমরানদের ভিড়ে একাদশে জায়গা পাওয়ায়টাই কঠিন হয়ে পড়বে তরুণ অলরাউন্ডার আফিফ হোসেনের জন্য। তাই তো সেটির সমাধান করেন দিল বিসিবি। দ্বিতীয় রাউন্ডে খুলনা নয় সিলেটের হয়ে খেলবেন আফিফ।

প্রথম রাউন্ডে বরিশালের কাছে ইনিংস ও ১৩ রানের ব্যবধানে হেরেছে সিলেট। আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে জাতীয় লিগের দ্বিতীয় রাউন্ড। সেই রাউন্ডে বগুড়ায় ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে মাঠে নামবে আফিফের সিলেট।

মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৯

সিপিএলের সেরা একাদশে জায়গা পেলেন না সাকিব

সিপিএলের সেরা একাদশে জায়গা পেলেন না সাকিব

সিপিএলের সেরা দল ঘোষণা, নেই গেইল-রাসেল
৪ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ অক্টোবর পর্যন্ত চলা ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সাকিবের দল বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টস। সফল এই টুর্নামেন্ট শেষে ঘোষণা করা হয়েছে প্রতিযোগিতাটির সেরা দল। যেখানে জায়গা মেলেনি ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল, বার্বাডোজের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার সহ বাংলাদেশের সাকিব আল হাসানের।
২৭ রানের ব্যবধানে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সকে  হারিয়ে সিপিএল ২০১৯ আসরের শিরোপা জিতেছিলো বার্বাডোজ। রোমাঞ্চকর ফাইনাল শেষে আসরের সেরা দল ঘোষণা করেছে সিপিএল কতৃপক্ষ।



চ্যাম্পিয়ন দল বার্বাডোজ থেকে রাখা হয়েছে দুইজন ক্রিকেটারকে, তারা হলেন রাইমন রেফার ও হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র। টুর্নামেন্টে রেকর্ড টানা ১১ ম্যাচ জিতে ফাইনালে স্বপ্নভঙ্গ হওয়া গায়ানা ওয়ারিয়ার্সের আছেন ৫ ক্রিকেটার। এছাড়াও ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স থেকে লেন্ডল সিমন্স ও কাইরন পোলার্ড। উইকেটরক্ষক হিসাবে সুযোগ পেয়েছেন জ্যামাইকা তালাওয়াহসের গ্লেন ফিলিপস। এছাড়াও সেন কিটস থেকে সেরা ১১ তে সুযোগ মিলেছে অলরাউন্ডার ফ্যাব্রিয়েন অ্যালেনের।

তবে সেরা এই একাদশে সুযোগ হয়নি সাকিবের। টুর্নামেন্টের মাঝপথে খেলতে যাওয়া সাকিব লিগে খেলেছেনই মোটে ৫টা ম্যাচ। এবারের সিপিএলে সেরা তিন উইকেট সংগ্রাহকের মধ্যে একজন হলেও জায়গা পাননি চ্যাম্পিয়ন বার্বাডোজের অধিনায়ক হোল্ডার। ১৩ ম্যাচে ৪১৫ রান নিয়ে সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায় ৩ নম্বরে থেকেও বিশেষজ্ঞদের মন গলাতে পারেননি জনসন চার্লস।
এক নজরে সিপিএলের সেরা একাদশ: ব্রেন্ডন কিং (গায়ানা), লেন্ডল সিমন্স (ত্রিনবাগো), গ্লেন ফিলিপস (উইকেটরক্ষক, জ্যামাইকা), শোয়েব মালিক (অধিনায়ক, গায়ানা), কাইরন পোলার্ড (ত্রিনবাগো), ফ্যাব্রিয়ান অ্যালেন (সেন্ট কিটস), ক্রিস গ্রিন (গায়ানা), রোমারিও শেফার্ড (গায়ানা), রাইমন রেফার (বার্বাডোজ), হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র (বার্বাডোজ) ইমরান তাহির (গায়ানা)।
আইসিসির সদস্যপদ ফিরে পেল জিম্বাবুয়ে

আইসিসির সদস্যপদ ফিরে পেল জিম্বাবুয়ে


তিন মাস নিষিদ্ধ থাকার পর আইসিসির সদস্যপদ ফিরে পেল জিম্বাবুয়ে। গতকাল সোমবার দুবাইয়ে আইসিসির সভায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর ফলে আগামী বছরের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিতব্য ছেলেদের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ও ২০২০ সালের আইসিসি সুপার লিগে অংশগ্রহণ করতে পারছে দলটি। 

উক্ত সভায় আইসিসির সভাপতি শশাঙ্ক মনোহর বলেন, “জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট পুনরুদ্ধারে প্রতিশ্রুতি দেয়ার জন্য আমি জিম্বাবুয়ের ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। জিম্বাবুয়ে আত্মপক্ষ সমর্থনে পুনরায় আমাদের কাছে চিঠি দিয়েছিল। তাই তাদের যুক্তিসঙ্গত দাবিতে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট আইসিসির সদস্যপদ ফিরে পেয়েছে।” 

প্রসঙ্গত, জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালনা ও প্রশাসনে সরকারের হস্তক্ষেপের অভিযোগে গত জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ের সদস্যপদ স্থগিত করে আইসিসি। এর ফলে জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটে আইসিসির সব ধরনের অনুদান বন্ধ ছিল। এমনকি আইসিসির কোনো খেলায় অংশগ্রহণ করার ব্যাপারেও জিম্বাবুয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা ছিল। এ ছাড়াও সভায় শর্ত সাপেক্ষে নেপালকেও আইসিসির সদস্যপদে পুনর্বহাল করা হয়েছে। ২০১৬ সালে আইসিসির নিয়ম ভঙ্গের দায়ে তাদেরকেও নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

মঙ্গলবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৯

বিগ ব্যাশে নাম লেখালেন ডেল স্টেইন

বিগ ব্যাশে নাম লেখালেন ডেল স্টেইন


১৭ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া এবারের বিগ ব্যাশের আসরের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকান ফাস্ট বোলার ডেল স্টেইনের সঙ্গে চুক্তি করেছে মেলবোর্ন স্টার্স। টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ছয় ম্যাচের জন্য প্রোটিয়া এই তারকা পেসারকে দলে ভিড়িয়েছে দলটি। নেপালি লেগ স্পিনার সন্দীপ লামিচানের পর দ্বিতীয় বিদেশি ক্রিকেটার হিসেবে স্টেইনের সঙ্গে চুক্তি করেছে মেলবোর্ন স্টার্স।

প্রথমবারের মতো বিগ ব্যাশ খেলতে যাওয়া প্রোটিয়া এই পেসার বলেন, 'অনেকদিন ধরেই বিগ ব্যাশ খেলার চিন্তা করছি। দুর্ভাগ্যবশত বড়দিনের সময় দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট ম্যাচ থাকতো। যে কারণে আমি সুযোগ পাইনি। কিন্তু এখন টেস্ট থেকে বিদায় নিয়েছি, প্রোটিয়ারা যখন লাল বলের ক্রিকেট খেলবে তখন আমার সুযোগ রয়েছে এখানে খেলার।'

টেস্ট থেকে অবসর নিলেও এখনও সীমিত ওভারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেননি স্টেইন। ভারতে দক্ষিণ আফ্রিকার টি-টোয়েন্টি দলে অবশ্য সুযোগ পাননি। যদিও স্টেইন বলেছেন, তিনি ফিট ছিলেন। তবে সামনের বছর দক্ষিণ আফ্রিকার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরিকল্পনায় আছেন তিনি। জাতীয় দলের হয়ে খেলার আশা তাই ছেড়ে দিচ্ছেন না, ‘জাতীয় দলের হয়ে খেলার চেয়ে বড় গৌরবের আসলে কিছুই নেই। তবে সেই সুযোগ না পেলে বসে তো থাকতে পারি না। আমার মনে হয় স্টারসের হয়ে আমি খেলা চালিয়ে যেতে পারলে সেটা আমার জন্য ভালোই হবে।’

স্টেইনের আগে বিগ প্রথমবারের মতো চুক্তি করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকান সাবেক অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। ব্রিসবেন হিটের হয়ে খেলবেন মারকুটে এই ব্যাটসম্যান। এ ছাড়া আরেক দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিস মরিস আসন্ন বিগ ব্যাশের জন্য সিডনি থান্ডার্সের সঙ্গে চুক্তি করেছেন।