রবিবার, ৩ নভেম্বর, ২০১৯

সান্তনার-নিশামে সিরিজে সমতা ফেরালো নিউজিল্যান্ড

ঘরের মাঠিতে প্রথম টি-২০ ম্যাচে হেরে এবার দ্বিতীয় ম্যাচে ঠিকই ঘুরে দাড়ালো কিউইরা। দুর্দান্ত ব্যাটিং-বোলিং নৈপুণ্যে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ২১ রানে জিতে নিয়েছে নিউজিল্যান্ড।  রোববার ওয়েলিংটনের ওয়েস্টপ্যাক স্টেডিয়ামে ১৭৭ রান তাড়ায় ইংলিশদের ইনিংস শেষ হয় ১৫৫ রানে। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৭ উইকেটে জিতেছিল ইংল্যান্ড।

টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে ভালোই শুরু করে ইংলিশরা। বিপজ্জনক কলিন মানরোকে (৭) দ্রুত ফেরান স্যাম কারান। এরপর ঝড় ওঠে মার্টিন গাপটিলের ব্যাটে। ৩ চার ও ২ ছক্কায় ২৮ বলে ৪১ রানের ইনিংস আসে গাপটিলের ব্যাট থেকে। তার আগে কিপার-ব্যাটসম্যান সাইফার্টকে (১৬) ফেরান অভিষিক্ত ডানহাতি পেসার সাকিব মাহমুদ। তবে ২২ বছর বয়সী এই মিডিয়াম পেসার বাকি সময়ে ছিলেন বেশ খরুচে। ১২ বলে ৩ ছক্কা ও ১ চারে ২৮ রান করা কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে ফেরান আগের ম্যাচে অভিষেক হওয়া পেসার লুইস গ্রেগোরি।

থিতু হওয়া রস টেইলরকে ২৮ রানে ফেরান ক্রিস জর্ডান। শেষ দিকে এই পেসার নেন আরও দুই উইকেট। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান জেমি নিশাম ইনিংসের শেষ বলে জর্ডানের শিকার হওয়ার আগে ৪ ছক্কা ও ২ চারে খেলেন ২২ বলে ৪২ রানের ইনিংস। এটিই তার ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। ২৩ রানে ৩ উইকেট নেন জর্ডান, ২২ রানে ২ উইকেট নেন কারান।


লক্ষ্য তাড়ায় শুরুতেই চাপে পড়ে ইংল্যান্ড। প্রথম বলেই জনি বেয়ারস্টোকে সাজঘরে ফেরান টিম সাউদি। পরের ওভারে জেমস ভিন্সকে আউট করেন ইশ সোদি। তিনটি করে ছক্কা-চারে ১৭ বলে ৩২ রান করে তিনিও ইশ সোদির শিকার হলে চাপ বাড়ে ইংলিশদের। স্যাম বিলিংস ও কারানও ফেরেন দ্রুতই। এরপর ইংলিশদের ভরসা হয়ে দাড়ান দাভিদ মালান। কিন্তু শেষমেশ ২৯ বলে ৩৯ রান করে ফিরে যান তিনিও। মাত্র ৯৩ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে ইংল্যান্ড। এরপর তিনটি করে ছয় ও চারে জর্ডানের ১৯ বলে ৩৬ রানের ইনিংস কেবল পরাজয়ের ব্যবধানই কমিয়েছে। ২৫ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন বাঁহাতি স্পিনার মিচেল স্যান্টনার। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ হবে মঙ্গলবার নেলসনে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

নিউজিল্যান্ডঃ ২০ ওভারে ১৭৬/৮ (গাপটিল ৪১, মানরো ৭, সাইফার্ট ১৬, ডি গ্র্যান্ডহোম ২৮, টেইলর ২৮, মিচেল ৫, নিশাম ৪২, স্যান্টনার ০, সাউদি ৪*; স্যাম কারান ৪-০-২২-২, মাহমুদ ৪-০-৪৬-১, জর্ডান ৪-০-২৩-৩, ব্রাউন ২-০-৩২-০, রশিদ ৪-০-৪০-১, গ্রেগোরি ২-০-১০-১)

ইংল্যান্ডঃ ১৯.৫ ওভারে ১৫৫ (বেয়ারস্টো ০, মালান ৩৯, ভিন্স ১, মর্গ্যান ৩২, বিলিংস ৮, স্যাম কারান ৯, গ্রেগরি ১৫, জর্ডান ৩৬, রশিদ ৪, মাহমুদ ৪, ব্রাউন ৪*; সাউদি ৪-০-২৫-২, ফার্গুসন ৪-০-৩৪-২, স্যান্টনার ৪-০-২৫-৩, সোধি ৪-০-৩৭-২, মিচেল ১.৫-০-৯-১)

ফলাফলঃ নিউ জিল্যান্ড ২১ রানে জয়ী
ম্যান অব দা ম্যাচ: মিচেল স্যান্টনার
সিরিজ: ৫ ম্যাচ সিরিজে ১-১ সমতা

আরও পড়ুনঃ

বৃষ্টির কারণে বেঁচে গেল পাকিস্তান

ওমানের বিপক্ষে বাংলাদেশের স্কোয়াড ঘোষণা

এবাদতের বোলিং তোপে ১৬২ রানে অলআউট বরিশাল

বৃষ্টির কারণে বেঁচে গেল পাকিস্তান


টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়ে ১ নাম্বারে থাকা দল শ্রীলঙ্কার কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে তাদের মাঠিতেই। এরপর সেই শ্রীলঙ্কাকে হোয়াইটওয়াশ করেছে অস্ট্রেলিয়া দল। এবার তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলতে অস্ট্রেলিয়ায় পাকিস্তান দল। আজ প্রথম ম্যাচে সিডনিতে মুখোমুখি হয় দুই দল। তবে বৃষ্টির কারণে পরিত্যাক্ত হয় ম্যাচটি।

যথাসময়েই টস হয়েছিল। অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন। তবে মাঠের খেলা শুরুর আগে নামে বৃষ্টি। আবার থেমে যাওয়ায় শুরু হয় খেলা। কিন্তু থেমে থেমে বারবার সিডনিতে ঝরেছে বৃষ্টি। যার ফলে নিশ্চিত পরাজয়ের হাত থেকে বেঁচে গিয়েছে সফরকারী পাকিস্তান। এ ম্যাচে প্রায় সাড়ে তিন বছর পর পাকিস্তান দলে সুযোগ পান দীর্ঘদেহী পেসার মোহাম্মদ ইরফান।

আগে ব্যাট করতে নেমে অসি বোলারদের বিপক্ষে অধিনায়ক বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান ব্যতীত আর কেউই তেমন প্রতিরোধ গড়তে পারেননি। বৃষ্টির কারণে ২০ ওভারের খেলা পরিণত হয় ১৫ ওভারে। ফাখর জামান (০), হারিস সোহেল (৪), ইমাদ ওয়াসিম (০), আসিফ আলিরা (১১) ব্যর্থ হন। কাপ্তান বাবর আজম ৩৮ বলে অপরাজিত ৫৯ এবং মোহাম্মদ রিজওয়ান ৩৩ বলে ৩১ রান করলে ১৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১০৭ রান করতে সক্ষম হয় পাকিস্তান। মিচেল স্টার্ক ও কেন রিচার্ডসন নেন ২টি করে উইকেট।


ডিএলএস মেথডে অস্ট্রেলিয়ার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৫ ওভারে ১১৯ রান। এ লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৩.১ ওভারেই ৪১ রান করে ফেলে স্বাগতিকরা। অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ মাত্র ১৬ বলে করেন ৩৭ রান। ২ ওভার বল করে ৩১ রান দিয়ে ফেলেন বাঁহাতি পেসার মোহাম্মদ ইরফান। কিন্তু তখনই নামে বৃষ্টি। শেষ পর্যন্ত আর থামেনি বৃষ্টি। এজন্য কোনো ফল আসেনি ম্যাচে।

টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ফলাফল আসতে কমপক্ষে ৫ ওভার খেলা হতে হয়। বৃষ্টি আইনে বলছিল ৫ ওভারে বিনা উইকেটে ৩৩ রান করলেই জিতে যেত অস্ট্রেলিয়া। অথচ অজিরা করে ফেলে ৪১ রান। কিন্তু অজিরা সবশেষে ৩০ বল খেলতে না পারায় বেঁচে যায় পাকিস্তান। মাত্র ১১ বলের আক্ষেপ থেকেই গেল অজিদের!

আরও পড়ুনঃ

৭ উইকেট শিকার করলেন শাহীন আলম

রাজ্জাকময় দিনে বিপাকে খুলনা

বাংলাদেশ-ভারতের খেলা যেভাবে দেখবেন (অনলাইন ও টিভি)

ওমানের বিপক্ষে বাংলাদেশের স্কোয়াড ঘোষণা

ওমানের বিপক্ষে বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয়পর্বের ম্যাচের জন্য ২৩ সদস্যের দল বাছাই করেছেন বাংলাদেশ কোচ জেমি ডে। সবশেষ ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের দল থেকে পরিবর্তন আছে একটি। জুয়েল রানা বাদ পড়েছেন দল থেকে, তার জায়গায় নেওয়া হয়েছে রাকিব হোসেনকে। 

গ্রুপ 'ই'-তে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে ১৪ নভেম্বরের ওমানের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। ওমানের আল সিব-স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় শুরু হবে ম্যাচটি। তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক হার নিয়ে গ্রুপে কাতারের পর দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ওমান। ওমানের বিপক্ষে ম্যাচ খেলতে আগামীকাল ৩ নভেম্বর রাতে দেশত্যাগ করবে বাংলাদেশ।

তিন ম্যাচ থেকে ১ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপে বাংলাদেশের অবস্থান সবার শেষে। প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের মাঠে ১-০ ব্যবধানে হারের পর ঘরের মাঠে কাতারের বিপক্ষে বাংলাদেশ হেরেছিল ২-০ ব্যবধানে। ওমানের বিপক্ষে এটি হবে বাংলাদেশের তৃতীয় অ্যাওয়ে ম্যাচ। এর পর গ্রুপে আর একটি অ্যাওয়ে ম্যাচ বাকি থাকবে বাংলাদেশের, কাতারের বিপক্ষে।


বাংলাদেশ স্কোয়াড

গোলরক্ষকঃ আশরাফুল ইসলাম রানা (শেখ রাসেল), শহীদুল আলম সোহেল (আবাহনী), আনিসুর রহমান (বসুন্ধরা কিংস)

ডিফেন্ডারঃ টুটুল হোসেন বাদশা (আবাহনী), বিশ্বনাথ ঘোষ (শেখ রাসেল), ইয়াসিন খান (শেখ জামাল), রহমত মিয়া (সাইফ স্পোর্টিং), রিয়াদুল হাসান (সাইফ স্পোর্টিং), ইয়াসিন আরাফাত (সাইফ স্পোর্টিং), রায়হান হাসান (আবাহনী)


মিডফিল্ডারঃ সোহেল রানা (আবাহনী), জামাল ভূঁইয়া (সাইফ স্পোর্টিং), রবিউল হাসান (আরামবাগ), মামুনুল ইসলাম (আবাহনী), মোহাম্মদ ইব্রাহিম (বসুন্ধরা কিংস), বিপলু আহমেদ (শেখ রাসেল), সাদ উদ্দিন (আবাহনী)

ফরোয়ার্ডঃ নাবিব নেওয়াজ জীবন (আবাহনী), মাহবুবুর রহমান সুফিল (বসুন্ধরা কিংস), মতিন মিয়া (বসুন্ধরা কিংস), আরিফুর রহমান (আরামবাগ), তৌহিদুল আলম সবুজ (বসুন্ধরা কিংস), রকিব হোসেন (রহমতগঞ্জ)

শনিবার, ২ নভেম্বর, ২০১৯

৭ উইকেট শিকার করলেন শাহীন আলম

অনুর্দ্ধ-১৯ দলের ক্রিকেটার শাহীন আলম

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বরিশালে চলমান টেস্টে ৭ উইকেট নিলেন ১৯ না পেরোনো শাহীন আলম। তাঁর বোলিং নৈপুণ্যে খুলনা শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব ১৯ দল গুটিয়ে গেছে ১৮৪ রানে।

পরে ব্যাট হাতে নেমে চার দিনের দ্বিতীয় যুব টেস্টের প্রথম দিন শেষে বাংলাদেশের অনুর্ধ্ব ১৯ দল ২ উইকেটের বিনিময়ে সংগ্রহ করেছে ৭১ রান। অর্থাৎ ১১৩ রানে এখনো পিছিয়ে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।


 লঙ্কানদের হয়ে ওপেনার ক্রিমাসিংহ ১০৫ বলে ১১ চারে সংগ্রহ করেন ৭৩ রান।

প্রতিপক্ষের মাঠে আবারও ইউনাইটেডের হার

আবারও প্রতিপক্ষের মাঠে হেরেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। এবার বোর্নমাউথের মাঠে হেরেছে উলে গুনার সুলশারের দল। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে শনিবার ম্যাচটি ১-০ গোলে জেতে বোর্নমাউথ। চলতি লিগে এ নিয়ে চতুর্থ হারের দেখা পেল ইউনাইটেড। এগারো রাউন্ড শেষে তাদের জয় মাত্র তিনটি। গত রাউন্ডে নরিচ সিটিকে হারিয়ে চলতি মৌসুমে অ্যাওয়ে ম্যাচে প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছিল ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের দলটি।
বৃষ্টিতে ভারি হয়ে যাওয়া মাঠে শরীরের ভারসাম্য রাখতে না পারায় ভুগেছেন দুই দলের ফুটবলাররাই। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে জসুয়া কিংয়ের দুর্দান্ত গোলে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। অ্যাডাম স্মিথের ক্রসে বল বুক দিয়ে নামিয়ে প্রথম ছোঁয়ায় মার্কার অ্যারন ওয়ান-বিসাকাকে ছিটকে দিয়ে দ্বিতীয় ছোঁয়ায় দারুণ ভলিতে জাল খুঁজে নেন নরওয়ের ফরোয়ার্ড।


৬২তম মিনিটে দাভিদ দে হেয়ার দৃঢ়তায় ব্যবধান দ্বিগুণ করতে পারেনি বোর্নমাউথ। ১৩ মিনিট পর কর্নারের বিনিময়ে আবারও দলকে রক্ষা করেন স্প্যানিশ গোলরক্ষক। শেষ দিকে প্রতিপক্ষের রক্ষণে দারুণ চাপ তৈরি করে মরিয়া ইউনাইটেড। ৮২তম মিনিটে বদলি ফরোয়ার্ড ম্যাসন গ্রিনউডের ভলি কাছের পোস্টে লেগে ফিরলে সমতায় ফেরার সুযোগ হাতছাড়া হয় তাদের। ১১ ম্যাচে ইউনাইটেডের সংগ্রহ ১৩ পয়েন্ট।

আরও পড়ুনঃ

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে রাজ্জাকের '৬০০'

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আর্জেন্টিনা দলে ফিরলেন মেসি

এবাদতের বোলিং তোপে ১৬২ রানে অলআউট বরিশাল

রাজ্জাকময় দিনে বিপাকে খুলনা

ঢাকার শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জাতীয় ক্রিকেট লিগের প্রথম স্তরের ম্যাচে আব্দুর রাজ্জাকের মাইলফলকের ম্যাচে খুলনা বিভাগের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ২২৪ রানে অলআউট হয়েছে রংপুর বিভাগ। জবাবে দুই উইকেটে ২৪ রান করে প্রথম দিনের খেলা শেষ করেছে খুলনা। জাতীয় দলের ওপেনার ইমরুল কায়েস (৬) ও মইনুল ইসলামের (২) উইকেট হারিয়েছে খুলনা। খুলনার হয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু করবেন এনামুল হক বিজয় (১১*) এবং তুষার ইমরান (১*)।

টস হেরে আগে ব্যাটিং করতে নেমে ৮০ রানের মধ্যে তিন উইকেট হারায় রংপুর। দলটির উদ্বোধনী জুটি ভাঙে ৩৮ রানে। মাহমুদুল হাসানকে (২৪) ফেরান আব্দুল হালিম। এরপর জুটি গড়তে গিয়ে ব্যর্থ হন মেহেদী মারুফ এবং সোহরাওয়ার্দী শুভ। ব্যক্তিগত ২৬ রানে আব্দুল রাজ্জাকের বলে উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহানকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মারুফ। তারপর ফিরে যান ঘরোয়া লিগের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান নাঈম ইসলাম। ব্যক্তিগত ১৪ রানে মেহেদী হাসানের শিকার হয়ে ফেরেন তিনি।

তারপর সোহরাওয়ার্দীকে সঙ্গ দিতে উইকেটে আসেন নাসির হোসেন। ৫৯ রানের জুটি গড়েন তারা। নাসিরকে ৪০ রানে বোল্ড করেন রাজ্জাক। ৩৪ রানে মেহেদীর দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরেন সোহরাওয়ার্দী। এরপরের সবগুলো উইকেটই নেন রাজ্জাক। আরিফুল হকের ২৭ এবং রিশাদ হোসেনের ৪২ রানের কল্যাণে দুইশ পেরিয়ে যায় রংপুর। রিশাদ ৪২ রান করেন মাত্র ৩২ বল খেলে, একটি চার ও পাঁচটি ছক্কার সাহায্যে।


খুলনার অধিনায়ক রাজ্জাক ৬৯ রান খরচায় সাত উইকেট নেন। মেহেদী হাসানের শিকার দুই উইকেট। এই ম্যাচে ছয় উইকেট নেয়ার সময় বিরল একটি রেকর্ড গড়েন রাজ্জাক। প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ছয়শ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করলেন রাজ্জাক। এই ম্যাচে সাত উইকেট নিয়ে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে রাজ্জাকের মোট উইকেট সংখ্যা এখন ৬০১টি। সবচেয়ে বেশি ৫ উইকেট পাওয়ার রেকর্ডও তাঁর।

পড়ুনঃ প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ৫ বোলার

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

রংপুর বিভাগ প্রথম ইনিংসঃ ২২৪/১০ (৮১.১ ওভার) (রিশাদ ৪২, নাসির ৪০; রাজ্জাক ৭/৬৯) খুলনা বিভাগ প্রথম ইনিংসঃ ২৪/২ (৯ ওভার) (এনামুল ১১*, ইমরুল ৬, রবিউল ২/৬)

জাতীয় ক্রিকেট লীগের আরও খবর পড়তে এখানে ক্লিক করুন

আরও পড়ুনঃ

আবারও ব্যর্থ সাব্বির রহমান

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে পাকিস্তানের শেহজাদ

লঙ্কানদের ধবলধোলাই করল অস্ট্রেলিয়া

আবারও ব্যর্থ সাব্বির রহমান, ২০০ পার করল রাজশাহী



ভারত সফরের দল থেকে বাদ পড়া সাব্বির রহমান জাতীয় লিগে আবারও হয়েছেন ব্যর্থ। বাজে ফর্মের কারণে দল থেকে বাদ পড়েছেন সাব্বির। কিন্ত জাতীয় লিগেও ফিরে পাচ্ছেন না ফর্ম। আজও ফিরেছেন মাত্র ২ রান করে। এর আগের দুই ম্যাচে করেছেন মোটে ১৯ রান। তিন ইনিংসে সাব্বিরের স্কোর যথাক্রমে ১১, ০ ও ৮ রান।

জাতীয় ক্রিকেট লিগের চতুর্থ রাউন্ডে প্রথম স্তরের ম্যাচে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ২৩০ রানে অলআউট হয়েছে রাজশাহী বিভাগ। জবাবে এক ওভার ব্যাটিং করে কোন রান না করে প্রথম দিনের খেলা শেষ করেছে ঢাকা বিভাগ। কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের একাডেমী মাঠে এদিন টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে স্বাচ্ছন্দ্যে ছিল না রাজশাহী। দলীয় ৭৮ রানে চার উইকেট হারিয়েছে তারা। রাজশাহী শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন পেসার সুমন খান। ওপেনার সাব্বির হোসেনকে নয় রানে ফেরান তিনি। এরপর আরেক ওপেনার মিজানুর রহমানকে (২২) ফেরান শুভাগত হোম।

মিজানুরকে ফেরানোর পর অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান জুনায়েদ সিদ্দিকীকেও (৯) থিতু হতে দেননি শুভাগত। এরপর মধ্যাহ্ন বিরতির আগমুহূর্তে সাব্বির রহমানকে (২) বোল্ড করে ফেরান সুমন। আগের দুই ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও উল্লেখযোগ্য রান করতে পারেননি সাব্বির। সাব্বির ফেরার পর অধিনায়ক ফরহাদ হোসেনকে নিয়ে বিপর্যয় সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন নাজমুল হোসেন শান্ত। কিন্তু এই দুজনের জুটিটি ৩৬ রানের বেশি স্থায়ী হয়নি। ফরহাদ ফিরে যান ১৬ রানে।



শান্ত হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন। এরপর শুভাগতর তৃতীয় শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন তিনি। ৫৬ রানের ইনিংসে একটি ছক্কা ও সাতটি চার মারেন শান্ত। ১২৬ রানে ছয় উইকেট পড়ার পর ৮৭ রানের জুটি গড়েন অলরাউন্ডার মোক্তার আলী এবং স্পিনার সানজামুল ইসলাম। এই জুটিতেই দুইশ ছাড়িয়ে যায় রাজশাহী। সানজামুল ৪৯ রানে ফিরে গেলেও হাফ সেঞ্চুরির দেখা পান মোক্তার। ৫৬ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। ঢাকা বিভাগের হয়ে তিনটি করে উইকেট নেন শুভাগত হোম ও সুমন খান। দুটি করে উইকেট নেন সালাউদ্দিন শাকিল ও জুবায়ের হোসেন লিখন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

রাজশাহী বিভাগ প্রথম ইনিংসঃ ২৩০/১০ (৮৬.১ ওভার) (মোক্তার ৫৬*, শান্ত ৫৬, সানজামুল ৪৯; সুমন ৩/৪৩, শুভাগত ৩/৫৭) ঢাকা বিভাগ প্রথম ইনিংসঃ ০/০ (১ ওভার) (আব্দুল মজিদ ০*, সাইফ হাসান ০*)

জাতীয় ক্রিকেট লীগের আরও খবরাখবর পড়তে এখানে ক্লিক করুন

আরও পড়ুনঃ

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে পাকিস্তানের শেহজাদ

রিয়াদ-মুশফিকদের উপর হতে পারে জঙ্গি হামলা!

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে রাজ্জাকের '৬০০'

এবাদতের বোলিং তোপে ১৬২ রানে অলআউট বরিশাল


জাতীয় ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে এবাদত হোসেনের বোলিং তোপে সিলেট বিভাগের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ১৬২ রানে অলআউট হয়েছে বরিশাল বিভাগ। জবাবে এক উইকেটে ৮২ রান করে প্রথম দিন শেষ করেছে সিলেট।
এদিন কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে স্বস্তিতে ছিল না বরিশাল। দলীয় ৩৫ রানের মধ্যেই চার উইকেট হারায় দলটি। ওপেন করতে নামা শাহরিয়ার নাফিসকে শূন্য রানে ফেরান এবাদত হোসেন। সিলেট বিভাগের এই পেসার অধিনায়ক ফজলে রাব্বিকেও ফিরিয়ে দেন শূন্য রানে।

ওপেন করতে নামা মোহাম্মদ আশরাফুলও এ দিন সুবিধা করতে পারেননি। আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি হাঁকানো এই ব্যাটসম্যান ফিরে যান ২০ রানে। তাঁকে বোল্ড করে ফেরান এনামুল হক জুনিয়র। এরপর এবাদতের তৃতীয় শিকার হয়ে ফেরেন রাফসান আল মাহমুদ (১০)। তারপর হাল ধরেন নুরুজ্জামান। তাঁর ব্যাটে আসে ৪০ রান। এরপর টেল এন্ডার ব্যাটসম্যানদের প্রচেষ্টায় ১৫০ রান পার করে বরিশাল। সোহাগ গাজি ২৩, সালমান হোসেন ২৫ ও মনির হোসেন ১৮ রান করেন।


সিলেট বিভাগের হয়ে পাঁচ উইকেট নেন এবাদত হোসেন। নাসুম আহমেদ নেন তিনটি উইকেট। একটি করে উইকেট নেন আবু জায়েদ রাহি ও এনামুল হক জুনিয়র। সিলেট ব্যাটিং করতে নামলে উদ্বোধনী জুটিতেই ৭৮ রান করেন ইমতিয়াজ হোসেন ও শানাজ আহমেদ। রাফসান আল মাহমুদের বলে ৪৮ রানে ফিরে যান ইমতিয়াজ। শানাজের (৩২*) সঙ্গে দলটির হয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু করবেন এনামুল হক জুনিয়র (২*)।
সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বরিশাল বিভাগ প্রথম ইনিংসঃ ৫৭.১ ওভারে ১৬২/১০ (নুরুজ্জামান ৪০, সালমান ২৫; এবাদত ৫/৩৬, নাসুম ৩/৫৭) সিলেট বিভাগ প্রথম ইনিংসঃ ৮২/১ (৩২ ওভার) (ইমতিয়াজ ৪৮, শানাজ ৩২*; রাফসান ১/৬)

জাতীয় ক্রিকেট লীগের আরও খবরাখবর পড়তে এখানে ক্লিক করুন

আরও পড়ুনঃ

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে রাজ্জাকের '৬০০'

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে পাকিস্তানের শেহজাদ

চট্টগ্রামের বিপক্ষে 'দেড়শ' ছাড়িয়ে সাদমান


ভারতে টেস্ট খেলার জন্য পাড়ি জমানোর আগে দারুণ প্রস্তুতি সেরে নিলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ওপেনার সাদমান ইসলাম। জাতীয় ক্রিকেট লীগের চতুর্থ রাউন্ডে চট্টগ্রাম বিভাগের সাথে সেঞ্চুরি হাকিয়েছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। রানের দেখা পেয়েছেন টপ ও মিডল অর্ডারের আরও তিন জন। সবার মিলিত অবদানে চট্টগ্রামের বিপক্ষে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে গেছে ঢাকা মেট্রো। তবে ব্যাটসম্যানদের দাপটের দিনে ভারত সফরের প্রস্তুতিটা ভালো হয়নি চট্টগ্রামের তরুণ অফ স্পিনার নাঈম হাসানের।


জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে প্রথম দিন শেষে ১৬২ রানে অপরাজিত আছেন সাদমান। অপরাজিত আরেক ব্যাটসম্যান জাবিদ হোসেনের সংগ্রহ ৭ রান। মেট্রোর সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৩৫৭ রান। আগের রাউন্ডে বরিশালের বিপক্ষে ম্যাচের তিন দিন বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ার ব্যাটিংয়ের তেমন সুযোগ পাননি সাদমান। শেষ দিনে অপরাজিত ছিলেন ১৭ রানে। এর আগের ম্যাচে চট্টগ্রামের বিপক্ষে একমাত্র ইনিংসে করেছিলেন মাত্র ৬ রান। তাই ভারত সফরের আগে বড় রান পাওয়ার এটাই ছিল শেষ সু্যোগ।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা মেট্রো শুরুতেই হারায় উইকেট। ওপেনার আজমির আহমেদকে শূন্য রানে ফেরান হাসান মাহমুদ। দ্বিতীয় উইকেটে অভিজ্ঞ শামসুর রহমানকে নিয়ে ৯৭ রানের জুটি গড়েন সাদমান। ঠিক ৫০ রান করে নাঈম হাসানের বলে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন শামসুর। তৃতীয় উইকেটে অধিনায়ক মার্শালের সঙ্গে ৮০ রানের আরেকটি ভালো জুটি গড়া সাদমান সেঞ্চুরি তুলে নেন ১৮৪ বলে। সেঞ্চুরির পথে হাঁকান ১৪টি চার ও একটি ছক্কা।


দিনের সেরা জুটিটি গড়েন আল আমিন ও সাদমান। চতুর্থ উইকেটে ১৬২ রান যোগ করেন দুজনে। ১১০ বলে ৮৩ রানের আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলে শেষ বিকেলে মেহেদী হাসান রানার বলে আউট হয়ে যান আল আমিন। ২৯ ওভারে ৯৭ রান দিয়ে মাত্র ১টি উইকেট পান নাঈম। ৬৫ রানে দুই উইকেট নিয়ে চট্টগ্রামের সেরা বোলার মেহেদী হাসান রানা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

ঢাকা মেট্রো প্রথম ইনিংসঃ ৯০ ওভারে ৩৫৭/৪ (সাদমান ১৬২*, আজমীর ০, শামসুর ৫০, মার্শাল ৪০, আল আমিন ৮৩, জাবিদ ৭*; হাসান ১৪-১-৬৫-২, ইফরান ১৫-১-৫৮-০, নাঈম্ ২৯-৬-৯৭-১, মেহেদী ১৩-২-৫৯-১, আফ্রিদি ১৪-১-৫৩-০, তাসামুল ৫-১-১৮-০)

আরও পড়ুনঃ

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে রাজ্জাকের '৬০০'

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে পাকিস্তানের শেহজাদ

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আর্জেন্টিনা দলে ফিরলেন মেসি

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে রাজ্জাকের '৬০০'


বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৬০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করলেন আব্দুর রাজ্জাক। জাতীয় লিগের চতুর্থ রাউন্ডে খুলনার হয়ে রংপুরের বিপক্ষে ম্যাচের প্রথম দিনে শনিবার অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার পা রাখলেন অনন্য এই উচ্চতায়। তাঁর অসাধারণ এই অর্জনের স্বাক্ষী হয়ে থাকল মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়াম। ৫০০ উইকেটেও তিনিই ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম।


গত বছরের জানুয়ারিতে বিসিএলের ম্যাচে ৫০০ উইকেট ছুঁয়েছিলেন রাজ্জাক। দক্ষিণাঞ্চলের হয়ে বিসিএলের ম্যাচটিতে সাদমান ইসলাম ছিলেন তার ৫০০তম শিকার। এবার ৬০০তম শিকার হয়ে রাজ্জাকের ইতিহাস গড়ার অংশ হয়ে থাকলেন রংপুরের তরুণ পেসার রবিউল হক। ৫০০ ছুঁতে ১১৩ ম্যাচ লেগেছিল রাজ্জাকের। ৬০০ হলো ১৩২তম ম্যাচে।

বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৫০০ উইকেটও নেই আর কারও। ৪৭৭ উইকেট নিয়ে তালিকার ২য় স্থানে আছেন আরেক বাঁহাতি স্পিনার এনামুল হক জুনিয়র। ৫৯৪ উইকেট নিয়ে এই ম্যাচ শুরু করেছিলেন রাজ্জাক। ম্যাচের প্রথম দিনেই পাড়ি দিলেন সেই দূরত্বটুকু। 

বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি বার ৫ উইকেট ও ১০ উইকেটের রেকর্ডও রাজ্জাকের। এই ম্যাচ নিয়ে ৩৯ বার প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৫ উইকেট পেলেন তিনি। ১০ উইকেট নিয়েছেন ১০ বার।


প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ উইকেট 
  • আব্দুর রাজ্জাক ৬০০* 
  • এনামুল হক জুনিয়র ৪৭৭* 
  • মোহাম্মদ শরীফ ৩৯৩ 
  • মোশাররফ হোসেন ৩৯২ 
  • সাকলাইন সজীব ৩৬১ 



বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশিবার ৫ উইকেট
  • আব্দুর রাজ্জাক ৩৯ 
  • এনামুল হক জুনিয়র ৩৪ 
  • সাকিব আল হাসান ২৩ 
  • সোহাগ গাজী ২৩ 
  • তাইজুল ইসলাম ২১ 
  • সাকলাইন সজীব ২১
আরও পড়ুনঃ

চট্টগ্রামের বিপক্ষে 'দেড়শ' ছাড়িয়ে সাদমান

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে পাকিস্তানের শেহজাদ

বাংলাদেশ-ভারতের খেলা যেভাবে দেখবেন (অনলাইন ও টিভি)

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে পাকিস্তানের শেহজাদ

দুই বছর আগে বল টেম্পারিং করে ১ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার দুই তারকা স্টিভেন স্মিথ এবং ডেভিড ওয়ার্নার। নিষেধাজ্ঞা শেষে দুর্দান্তভাবেই ক্রিকেটে ফিরেছেন এ দুজন। তবে এত বড় না হলেও একই অপরাধে শাস্তি পেতে যাচ্ছেন পাকিস্তানের ওপেনার আহমেদ শেহজাদ। তাকে এজন্য জরিমানার শাস্তি দেওয়া হয়েছে। তবে অল্পেই বেঁচে গেছেন শেহজাদ।

পাকিস্তানের ঘরোয়া ক্রিকেটের আসর কায়েদ-ই আজম ট্রফিতে সেন্ট্রাল পাঞ্জাবের অধিনায়কত্ব করা শেহজাদ বল টেম্পারিং করে ধরা খান। সিন্ধের বিপক্ষে ম্যাচে বল টেম্পারিং করে ধরা পড়েন শেহজাদ। তবে কোনো নিষেধাজ্ঞা নয়, কেবলমাত্র আর্থিক জরিমানা দিয়েই মাফ পাচ্ছেন এই ব্যাটসম্যান। ম্যাচ ফির ৫০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে তাকে।


পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সোশ্যাল সাইট একাউন্টে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, 'সেন্ট্রাল পাঞ্জাবের অধিনায়ক আহমেদ শেহজাদকে বর টেম্পারিংয়ের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তিনি নিজের দোষ স্বীকার করে নিয়েছেন।' ক্রিকেটীয় নিয়ম ভঙ্গের জন্য এটাই শেহজাদের প্রথম শাস্তি নয়। এর আগে ডোপ টেস্টে ব্যর্থ হওয়ায় ২০১৮ সালে তাকে চার মাস নিষিদ্ধ করেছিল পিসিবি।

আরও পড়ুনঃ

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আর্জেন্টিনা দলে ফিরলেন মেসি

দ্বিতীয় শিরোপা জেতা হলো না চট্টগ্রাম আবাহনীর

বাংলাদেশ-ভারতের খেলা যেভাবে দেখবেন (অনলাইন ও টিভি)

মানসিক চাপের কারণে ক্রিকেট থেকে অনির্দিষ্টকালের ছুটিতে ম্যাক্সওয়েল

শুক্রবার, ১ নভেম্বর, ২০১৯

লঙ্কানদের ধবলধোলাই করল অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়া দল

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজের সবকটি ম্যাচেই জিতলো অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ম্যাচে ১৩৪ রানের বিশাল জয় পায় অজিরা। দ্বিতীয় ম্যাচেও জিতে ৯ উইকেটে। আর আজকে সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে জিতলো ৭ উইকেটে। তিন ম্যাচেই পঞ্চাশোর্ধ রান করেছেন অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার এবং তিন ম্যাচেই ছিলেন অপরাজিত। প্রথম ম্যাচে ১০০, দ্বিতীয় ম্যাচে ৬০ ও তৃতীয় ম্যাচে করেছেন ৫৭ রান। মোট ২১৭ রান করে সিরিজ সেরাও নির্বাচিত হয়েছেন এই ওপেনার।
শুক্রবার (১ নভেম্বর) সিরিজের শেষ ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় অস্ট্রেলিয়া। নির্ধারিত ২০ ওভারে লঙ্কানরা ৬ উইকেটের বিনিময়ে সংগ্রহ করে ১৪২ রান। জবাবে ১৪ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটের জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ম্যান অফ দা ম্যাচ হন ডেভিড ওয়ার্নার। তবে ২য় ইনিংসের ৪র্থ ওভারে প্রদীপের বলে মিড অফে মালিঙ্গার হাতে ক্যাচ মিস হয় ওয়ার্নারের। পরে একেবারে ম্যাচ জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন এই অজি তারকা।

শুরুতে লঙ্কান শিবিরে প্রথম ওভারেই আঘাত হানেন বামহাতি পেসার মিচেল স্টার্ক। ওভারের শেষ বলে দলীয় ৩ রানে ফেরান ডেকওয়ালাকে। আরেক ওপেনার কুসাল মেন্ডিসও ফিরে যান ১৮ বলে ১৩ রান করে রিচার্ডসনের বলে। এরপরে ৪৩ রানের জুটি গড়েন ডানহাতি ব্যাটসম্যান আভিষ্কা ফার্নান্ডো ও বাঁহাতি ব্যাটসম্যান কুশাল পেরেরা। ২২ বলে ২০ রান করে কামিন্সের বলে আভিষ্কা ফিরলে ভাঙ্গে তাদের জুটি। 


এরপর রিচার্ডসনের বলে উইকেট কিপার এলেক্স ক্যারির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন অশাডা ফার্নান্ডো। যদিও রিভিউ নেন অশাডা, কিন্ত বাচতে পারেননি তিনি। দলীয় ১১০ রানে ৪৫ বলে ৫৭ রান করে ফিরে যান কুশাল পেরেরাও। কামিন্সের বলে টার্নারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। শেষ পর্যন্ত রাজাপাকশার ১১ বলে ১৭ ও মালিঙ্গার ৪ বলে ৮ রানের ক্যামিও ইনিংসে ১৪২ রান করতে সক্ষম হয় শ্রীলঙ্কা। দুটি করে উইকেট লাভ করেন কামিন্স, রিচার্ডসন ও স্টার্ক।

সহজ লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই লঙ্কান বোলারদের উপর চড়াও হন অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। তবে ২৫ বলে ৩৭ রান করে সাজঘরে ফিরেন তিনি। গত ম্যাচে ফিফটি হাকানো স্টিভ স্মিথও এদিন ফিরে যান মাত্র ১৩ রান করে। প্রদীপের বলে স্কোয়ার লেগে সান্দাকানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। 


৫ রান করে ম্যাকডারমোট ফিরে গেলে কিছুটা চাপে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। কিন্ত সেই চাপ দারুণভাবে সামাল দেন ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যাস্টন টার্নার। ১৭.৪ ওভারেই ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন তাঁরা। ৪৬ রানের জুটি গড়েন এই দুজন ব্যাটসম্যান। ৫০ বলে ৫৭ রান করে অপরাজিত থাকেন ওয়ার্নার। টার্নার ১৫ বলে ২২ রান করে থাকেন অপরাজিত। 

তিন ম্যাচ সিরিজের তিন ম্যাচেই শ্রীলঙ্কার বোলিং-ব্যাটিং দুটিরই অবস্থা ছিল করুণ। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কা অলআউট হয় ৯৯ রানে। দ্বিতীয় ম্যাচে করে ৮ উইকেটে ১৩১ রান, আর সিরিজের শেষ ম্যাচে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ১৪২ রান করে লঙ্কানরা। 
লঙ্কান বোলারদের অবস্থা ছিল আরও করুণ। ৩ ম্যাচে তাঁরা শিকার করতে পেরেছে মাত্র ৬ উইকেট। আবার ইকোনমির অবস্থাও বেশ খারাপ। প্রথম ম্যাচে ২০ ওভারে ২২৩ রান দেয় শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় ম্যাচেও মাত্র ১৩ ওভারে ১১৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করে ফেলে অস্ট্রেলিয়া। আর তৃতীয় ম্যাচে ১৭.৪ ওভারেই ১৪৫ রান দিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

শ্রীলঙ্কা: ২০ ওভারে ১৪২/৬ (কুসল মেন্ডিস ১৩, ডিকভেলা ০, কুসল পেরেরা ৫৭, আভিস্কা ফার্নান্দো ৩০, ওশাদা ৬, জয়সুরিয়া ১২, রাজাপাকসে ১৭*, মালিঙ্গা ৮*; স্টার্ক ৪-০-৩২-২, রিচার্ডসন ৪-০-২৫-২, কামিন্স ৪-০-২৩-২, অ্যাগার ৪-০-২৪-০, জ্যাম্পা ৪-০-৩০-০)
অস্ট্রেলিয়া: ১৭.৪ ওভারে ১৪৫/৩ (ফিঞ্চ ৩৭, ওয়ার্নার ৫৭*, স্মিথ ১৩, ম্যাকডারমট ৫, টার্নার ২২*; মালিঙ্গা ৪-০-২২-১, কুমারা ৪-০-৪৯-১, প্রদিপ ৩.৪-০-২০-১, জয়সুরিয়া ২-০-২৪-০, সান্দাক্যান ৪-০-২৫-০)

ফল: অস্ট্রেলিয়া ৭ উইকেটে জয়ী
ম্যান অব দা ম্যাচ: ডেভিড ওয়ার্নার
ম্যান অব দা সিরিজ: ডেভিড ওয়ার্নার

আরও পড়ুনঃ

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আর্জেন্টিনা দলে ফিরলেন মেসি

দ্বিতীয় শিরোপা জেতা হলো না চট্টগ্রাম আবাহনীর

ভিন্স, পেসারদের নৈপুণ্যে সিরিজে এগিয়ে ইংল্যান্ড

বাংলাদেশ-ভারতের খেলা যেভাবে দেখবেন (অনলাইন ও টিভি)

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আর্জেন্টিনা দলে ফিরলেন মেসি

ব্রাজিল ও উরুগুয়ের বিপক্ষে নভেম্বরে হতে যাওয়া দুটি প্রীতি ম্যাচের জন্য বৃহস্পতিবার দল ঘোষণা করেন কোচ লিওনেল স্কালোনি। আন্তর্জাতিক ফুটবলে তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে সেই দলে ফিরেছেন লিওনেল মেসি। দলে আরও ফিরেছেন সের্হিও আগুয়েরো। তবে ডাক পাননি পিএসজির জার্সিতে ছন্দে থাকা স্ট্রাইকার মাউরো ইকার্দি। দলে আরও নেই ফরাসি ক্লাবটিতে ফর্মে থাকা মিডফিল্ডার আনহেল দি মারিয়া।


কোপা আমেরিকা চলার সময় দক্ষিণ আমেরিকা ফুটবল কনফেডারেশনের (কনমেবল) বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তোলায় আন্তর্জাতিক ফুটবলে তিন মাস নিষিদ্ধ হন মেসি। গত ৬ জুলাই কোপা আমেরিকার তৃতীয় স্থান নির্ধারনী লড়াইয়ে চিলির বিপক্ষে ২-১ গোলে জেতা ম্যাচে জাতীয় দলের হয়ে শেষ খেলেছিলেন মেসি। ম্যাচটির ৩৭তম মিনিটে লাল কার্ড দেখেছিলেন তিনি। ৩ অগাস্ট মেসিকে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। সেই হিসেবে ৩ নভেম্বর শেষ হতে যাচ্ছে তার শাস্তির মেয়াদ।
কোপা আমেরিকায় মেসির লাল কার্ড পাওয়ার মুহুর্ত

এ মৌসুমে বার্সেলোনার হয়ে ৫ গোল করা মেসি নিষেধাজ্ঞার সময়ে আর্জেন্টিনার হয়ে খেলতে পারেননি ৪টি ম্যাচ। আর্জেন্টিনার হয়ে ১৩৫ ম্যাচে মেসির গোল সংখ্যা ৬৮। আগামী ১৫ নভেম্বর সৌদি আরবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের বিপক্ষে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা। আর ১৮ নভেম্বর ইসরায়েলে খেলবে উরুগুয়ের বিপক্ষে।


আর্জেন্টিনা দলঃ

গোলরক্ষক: হুয়ান মুসো (উদিনেজে), আগুস্তিন মার্চেসিন (পোর্তো), এমিলিয়ানো মার্তিনেস (আর্সেনাল), এস্তেবান আন্দ্রাদা (বোকা জুনিয়র্স)

ডিফেন্ডার: হুয়ান ফইথ (টটেনহ্যাম), রেনসো সারাভিয়া (পোর্তো), নিকোলাস ওতামেন্দি (ম্যানচেস্টার সিটি), হের্মান পেস্সেইয়া (ফিওরেন্তিনা), নিকোলাস তাগলিয়াফিকো (আয়াক্স), মার্কোস রোহো (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড), ওয়াল্তার কান্নেমান (গ্রেমিও), নেহুয়েন পেরেস (ফামালিকাও) 

মিডফিল্ডার: লেয়ান্দ্রো পারেদেস (পিএসজি), গিদো রদ্রিগেস (আমেরিকা), জিওভানি লো সেলসো (টটেনহ্যাম হটস্পার), নিকোলাস দোমিনগেস (ভালেস), রদ্রিগো দে পল (উদিনেজে), মার্কোস আকুনা (স্পোর্তিং লিসবন), রবের্তো পেরেইরা (ওয়াটফোর্ড), লুকাস ওকামপোস (সেভিয়া)

ফরোয়ার্ড: লিওনেল মেসি (বার্সেলোনা, সের্হিও আগুয়েরো (ম্যানচেস্টার সিটি), নিকোলাস গনসালেস (স্টুর্টগার্ট) লুকাস আলারিও (বায়ার লেভারকুসেন), লাউতারো মার্তিনেস (ইন্টার মিলান), পাওলো দিবালা (ইউভেন্তুস)

আরও পড়ুনঃ

দ্বিতীয় শিরোপা জেতা হলো না চট্টগ্রাম আবাহনীর

বাংলাদেশ-ভারতের খেলা যেভাবে দেখবেন (অনলাইন ও টিভি)

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ২১তম সেঞ্চুরি আশরাফুলের

ভিন্স, পেসারদের নৈপুণ্যে সিরিজে এগিয়ে ইংল্যান্ড

ব্যাটে বলে দারুণ পারফর্মেন্সে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ টি-২০ সিরিজের ১ম ম্যাচ জিতে নিয়েছে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ৭ উইকেটের জয় পেয়েছে ইংলিশরা। আর এই জয়ে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল ইংল্যান্ড।

ক্রাইস্টার্চে এদিন টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ইংলিশ অধিনায়ক এইয়ন মরগান। ইংলিশদের হয়ে অভিষেক হয় স্যাম কারান, লুইস গ্রেগরি ও প্যাট ব্রাউনের। কিউইদের শুরুতেই চাপে রাখে ইংলিশ বোলাররা। ম্যাচের ১৭তম বলে দলীয় ৬ রানেই আউট হন মার্টিন গাপটিল। ৭ বলে মাত্র ২ রান স্যাম কারানের বলে বোল্ড হয়ে ফিরেন গাপটিল। পাওয়ারপ্লে শেষে কিউইদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২ উইকেটে ৩৯ রান।

গাপটিলের বিদায়ের কিছুক্ষণ বাদ ফেরেন আরেক ওপেনার কলিন মুনরো। ২০ বলে ২১ রান করেন তিনি। চারে নামা কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমও ছিলেন নিষ্প্রভ। ১৯ রান আসে এই অলরাউন্ডারের ব্যাট থেকে। তিনে নামা টিম সাইফার্ট এক প্রান্ত ধরে রাখার চেষ্টায় ছিলেন। অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান রস টেলরের সঙ্গে জুটি গড়ার চেষ্টায় ব্যর্থ হন তিনিও। ২৬ বলে ৩২ রান নিয়ে ফেরেন তিনি।


টেলর ৩৫ বলে ৪৪ রানের ইনিংস খেলে আউট হলে শেষের দিকে ডার্ল মিচেল ১৭ বলের ৩০ রান নিয়ে দলকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন। নির্ধারিত ২০ ওভার ব্যাটিং করে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রান সংগ্রহ করে নিউজিল্যান্ড। ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন ক্রিস জর্ডান। এ ছাড়া একটি করে উইকেট তুলে নেন আদিল রশিদ, অভিষেক হওয়া প্যাট ব্রাউন এবং স্যাম কারান।

নিউজল্যান্ডের দেয়া ১৫৪ রানের লক্ষ্যে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে দলকে জয়ের স্বাদ দেন জেমস ভিন্স। ৩৮ বলে ৫৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেছেন তিনি, যেখানে ৭ চার, ২ ছক্কা মেরেছেন তিনি। এটি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে তাঁর প্রথম হাফ সেঞ্চুরি। রান তাড়ায় শুরুতেই উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। দলীয় ৩৭ রানে ওপেনার ডেভিড মালানের বিদায়ের পর তিনে নেমে দারুণ ব্যাটিংশৈলী দেখান ভিন্স। 


ব্যাট হাতে রান পেয়েছেন আরেক ওপেনার জনি বেয়ারস্টোও। তবে ভালো শুরু পেয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি তিনি। ২৮ বলে করেন ৩৫ রান। হাফ সেঞ্চুরি করে ভিন্স আউট হলেও দলের এক প্রান্ত ধরে রেখে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন বিশ্বকাপজয়ী ইংলিশ অধিনায়ক মরগান। অপরাজিত ৩৪ রানের ইনিংস খেলেছেন তিনি, তাঁর সঙ্গে ১৪ রান নিয়ে উইকেটে ছিলেন স্যাম বিলিংস।

শেষ পর্যন্ত ৯ বল হাতে রেখেই জয় পায় সফরকারীরা। ম্যান অফ দা ম্যাচ হন ইংল্যান্ডের ডানহাতি ব্যাটসম্যান জেমস ভিন্স। ইংল্যান্ডের তিন ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফেরাতে সক্ষম হয় কিউই বোলাররা। তিনটি উইকেটই নিয়েছেন স্পিনার মিচেল স্যান্টনার।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

নিউজিল্যান্ডঃ ২০ ওভারে ১৫৩/৫ (টেলর ৪৪, সাইফার্ট ৩২; জর্ডান ২/২৮, রশিদ ১/৩১)।
ইংল্যান্ডঃ ১৮.৩ ওভারে ১৫৪/৩ (ভিন্স ৫৯, বেয়ারস্টো ৩২; স্যান্টনার ৩/২৩)।

আরও পড়ুনঃ

দুষিত বায়ুতে শুরু বাংলাদেশ দলের প্রস্তুতি (ভিডিওসহ)

ক্রিকেট থেকে অনির্দিষ্টকালের ছুটিতে ম্যাক্সওয়েল

রিয়াদ-মুশফিকদের উপর হতে পারে জঙ্গি হামলা!

বৃহস্পতিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০১৯

দ্বিতীয় শিরোপা জেতা হলো না চট্টগ্রাম আবাহনীর

শেষ পর্যন্ত শিরোপা হাতছাড়া হয়ে গেল চট্টগ্রাম আবাহনীর। দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা জেতা হলো না চট্টগ্রাম আবাহনীর। শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের তৃতীয় আসরের শিরোপা জিতে নিয়েছে তেরেংগানু এফসি। ফাইনালে ২-১ গোলে জয় পেয়েছে মালয়েশিয়ার ক্লাবটি।

ম্যাচের শুরু থেকেই বেশ আক্রমণ করছিলো চট্টগ্রাম আবাহনী। কিন্ত ফিনিশিংয়ে ব্যার্থতার কারণে প্রথমার্ধে গোলের দেখা পায়নি তারা। দ্বিতীয়ার্ধে চট্টগ্রাম আবাহনীর পক্ষে একমাত্র গোল করেন রটকোভিচ লুকা। তবে এর আগেই ২ গোল খেয়ে বসে তারা। 

ম্যাচের ১৫ মিনিটেই তেরেংগানু এফসির হয়ে গোল করেন হাকিম বিন মামাত। এ আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা তেরেংগানু এফসির দলপতি লি টাকের দুর্দান্ত কর্ণারে হাকিম দারুণ হেডে বল জড়ান জালে। এর ৮ মিনিট পরেই আবার গোল করে তেরেংগানু এফসি। চট্টগ্রাম আবাহনীর রক্ষণভাগের দুজন খেলোয়াড়কে কাটিয়ে দুর্দান্ত ড্রিবল করে গোল করেন আজানিনুল্লাহ বিন মোহাম্মদ আলিয়াস।।

৪৫ মিনিটে গোল করেন চট্টগ্রাম আবাহনীর লুকা। এরপর আর কোন দলই গোল করতে পারেনি। ২-১ ব্যাবধানে শেষ হয় ম্যাচ। প্রথমবারের মতো এই টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতে নেয় মালয়েশিয়ার প্রিমিয়ার লিগের ৭ম দল তেরেংগানু এফসি। রানার্সআপ হয় শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের ২০১৫ সালের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়নরা। 

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের এবারের তৃতীয় আসরে অংশগ্রহণ করে মোট ছয়টি দল। বাংলাদেশের দুটি ক্লাব চট্টগ্রাম আবাহনী ও বসুন্ধরা কিংসের পাশাপাশি বিদেশী চার দল- তেরেংগানু এফসি, গোকুলাম কেরেলা এফসি, চেন্নাই সিটি এফসি ও মোহনবাগান অংশগ্রহণ করে।

আরও পড়ুনঃ

দুষিত বায়ুতে শুরু বাংলাদেশ দলের প্রস্তুতি (ভিডিওসহ)

ক্রিকেট থেকে অনির্দিষ্টকালের ছুটিতে ম্যাক্সওয়েল

লিগ কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে লিভারপুল

দুষিত বায়ুতে শুরু বাংলাদেশ দলের প্রস্তুতি (ভিডিওসহ)

গতকালই বাংলাদেশ দল গিয়ে পৌছেছে ভারতে। প্রথম টি-টোয়েন্টি অনুষ্টিত হবে ৩ নভেম্বর ভারতের দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে। প্রথম টি-টোয়েন্টির প্রস্তুতি শুরু করেছে বাংলাদেশ। আজ দিল্লিতে অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ, নেটেও ঘাম ঝরিয়েছেন বাংলাদেশী ক্রিকেটাররা।

কিছুদিন আগেই দিপাবলি শেষ হয়েছে। আর দিপাবলিতে দিল্লিতে প্রত্যেকবারের মতো এবারও অনেক বায়ু দুষণ হয়েছে। এই বায়ু দুষণ আগামী ১-২ অক্টোবরে শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। তবে ম্যাচের দিনও বায়ু দুষিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। ভারতের অনেক ক্রীড়া বিশ্লেষক ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্যের পাশাপাশি দর্শকদের কথা বিবেচনা করে ভেন্যু পরিবর্তন করার কথা বলছেন। তবে এ ব্যাপারে বিসিসিআই কোন সিদ্ধান্ত জানায়নি।




৩ নভেম্বর প্রথম টি-২০ ম্যাচের পর ৭ ও ১০ নভেম্বর অনুষ্টিত হবে দুটি টি-২০ ম্যাচ। এরপর ১৮ তারিখ শুরু হবে ১ম টেস্ট এবং ২য় টেস্ট শুরু হবে ২২ নভেম্বর।


বাংলাদেশ-ভারতের খেলা যেভাবে দেখবেন (অনলাইন ও টিভি)

আগামী ৩ নভেম্বর থেকে শুর হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার সিরিজ। ভারত সফরে ৩টি টি-২০ ও ২টি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। এ দুইদলের মধ্যকার সিরিজের টিভি রাইটস পেয়েছে স্টার স্পোর্টস। এ চ্যানেলে দেখা যাবে সিরিজের সবগুলো ম্যাচ।


ভারতের মাটিতে সিরিজের টিভি স্বত্ব অনেক আগেই কিনে নিয়েছে স্টার স্পোর্টস। বরাবরের মত ভারত সহ উপমহাদেশে স্টার স্পোর্টসের মাধ্যমে দেখতে পারবেন সিরিজটি। স্টার স্পোর্টস ছাড়াও বাংলাদেশে এ সিরিজের টিভি স্বত্ব নিয়েছে আরও দুইটি চ্যানেল। বাংলাদেশে জিটিভি সহ এ সিরিজটি দেখা যাবে চ্যানেল নাইনের পর্দায়।

এ দুইটি টিভি ছাড়াও বাংলাদেশ বাদে ভারতীয়রা অনলাইনে দেখতে পারবে হটস্টারের মাধ্যমে এবং বাংলাদেশে দেখা যাবে র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইটে। উপমহাদেশের চ্যানেলে বাদেও এ সিরিজ দেখা যাবে উইলো টিভি, স্কাই স্পোর্টস, ফক্স স্পোর্টসে।


বিভিন্ন দেশে যেসব টিভি চ্যানেল ও অনলাইন ওয়েবসাইটে দেখাবে খেলা

বাংলাদেশঃ জিটিভি, চ্যানেলে নাইন, র‍্যাবিটহোল (লাইভ স্ট্রিমিং)
ভারত ও উপ-মহাদেশঃ স্টার স্পোর্টস, হটস্টার (লাইভ স্ট্রিমিং)
মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকাঃ ওএসএন স্পোর্টস, হটস্টার, উইলো টিভি, সুপারস্পোর্ট (লাইভ স্ট্রিমিং)
অস্ট্রেলিয়াঃ ফক্স স্পোর্টস যুক্তরাজ্যঃ স্কাই স্পোর্টস
যুক্তরাষ্ট্রঃ উইলো
দক্ষিণ আফ্রিকাঃ সুপার স্পোর্ট
মালয়েশিয়াঃ অ্যাস্ট্রো ক্রিকেট
কানাডাঃ এটিএন ক্রিকেট প্লাস
সিঙ্গাপুরঃ স্টার ক্রিকেট

আরও পড়ুনঃ

রিয়াদ-মুশফিকদের উপর হতে পারে জঙ্গি হামলা!

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ২১তম সেঞ্চুরি আশরাফুলের

সাকিবকে ছাড়াই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ!

মানসিক চাপের কারণে ক্রিকেট থেকে অনির্দিষ্টকালের ছুটিতে ম্যাক্সওয়েল

গ্লেন ম্যাক্সওয়েল

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চলমান তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজে দুটি ম্যাচেই খেলেছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। প্রথম ম্যাচে খেলেছেন ২৮ বলে ৬২ রানের বিদ্ধংসী ইনিংস। তবে হঠাৎ করে ক্রিকেট থেকে অনির্দিষ্টকালের ছুটি নিয়েছেন তিনি। কারণ হিসাবে জানিয়েছেন, ‘মানসিক চাপ’ এর কথা। চলমান শ্রীলঙ্কা সিরিজ ও আসন্ন পাকিস্তান সিরিজের জন্য তাঁর পরিবর্তে দলে ডাক পেয়েছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ডা’আর্কি শট।


লঙ্কানদের বিপক্ষে চলমান সিরিজের প্রথম ম্যাচে ব্যাট হাতে দারুণ ছিলেন ম্যাক্সওয়েল। ডেভিড ওয়ার্নারের সেঞ্চুরি করার দিনে মাত্র ২৮ বলে খেলেছিলেন ৬২ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। গতকাল ব্রিসবেন ম্যাক্সওয়েলের ব্যাটে নামার আগেই ৯ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভেন স্মিথের ফিফটিতে সহজে তুলে নেয় অজিরা।

এই ম্যাচের পরেই ক্রিকেট থেকে নিজেকে দূরে রাখার সিদ্ধান্ত নেন অজি অলরাউন্ডার। এরই মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের কাছেও বিষয়টি জানিয়েছেন তিনি। যেখানে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচের পাশাপাশি পাকিস্তানের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজ থেকেও নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান তারকা ক্রিকেটার। তবে ঠিক কবে নাগাদ আবার ক্রিকেটে ফিরবেন, সেই বিষয়েও নির্দিষ্ট করে কিছু বলেননি ম্যাক্সওয়েল।


অস্ট্রেলিয়া দলের এক্সিকিউটিভ জেনারেল ম্যানেজার বেন অলিভার জানান, ক্রিকেটার এবং বোর্ড কর্তাদের সুস্থতা আমাদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ম্যাক্সওয়েলের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।’

দলটির মনোবিজ্ঞানী ডাক্তার মাইকেল লয়েড এই প্রসঙ্গে বলেন, এমুহূর্তে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল বেশ খানিক মানসিক চাপ অনুভব করছেন। যে কারণে কিছুটা সমস্যায় পড়েছেন তিনি। ফলে ক্রিকেট থেকে কিছুদিন দূরে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মাক্সওয়েল।

আরও পড়ুনঃ

জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডে চাকরি পেলেন মাসাকাদজা

ভারত সফরের টেস্ট স্কোয়াডে একাধিক চমক

অজিদের সাথে পাত্তাই পেলো না শ্রীলঙ্কা!

লিগ কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে লিভারপুল


আর্সেনালকে হারিয়ে লিগ কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌছেছে ইয়গুন ক্লপের শিষ্যরা। তবে আর্সেনালের সাথে সহজেই জিততে পারেনি লিভারপুল। ম্যাচে গোল হয়েছে মোট ১০টি। শেষ পর্যন্ত ট্রাইবেকারে গড়িয়েছে খেলা। লিভারপুলের মাঠে বুধবার শেষ ষোলোর ম্যাচটি নির্ধারিত সময় ৫-৫ ড্রয়ে শেষ হয়। টাইব্রেকারে ৫-৪ ব্যবধানে জয় নিশ্চিত করে লিভারপুল।

ম্যাচ শুরুর ষষ্ট মিনিটেই আত্মঘাতী গোল করে বসেন জার্মান ডিফেন্ডার স্কোড্রান মুস্তাফি। ১ গোলে পিছিয়ে পড়ে আর্সেনাল। ঘুরে দাঁড়াতে অবশ্য সময় নেয়নি লিগে শেষ দুই ম্যাচে জয়শূন্য থাকা দলটি। ১৭ মিনিটের মধ্যে তিন গোল করে ম্যাচে শক্ত অবস্থান নেয় তারা। আর্সেনাল প্রথম গোলের দেখা পায় ১৯তম মিনিটে। বুকায়ো সাকার শট গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ঠেকানোর পর ফিরতি বল ফাঁকায় জালে ঠেলে দেন উরুগুয়ের মিডফিল্ডার লুকাস তররেইরা।

২৬তম মিনিটে তাদের দ্বিতীয় গোলও হয় কিছুটা একইভাবে। এক সতীর্থের শট গোলরক্ষক ঠিকমতো ঠেকাতে না পারলে একেবারে গোলমুখে বল পেয়ে জোরালো শটে জালে পাঠান মার্তিনেলি। ১০ মিনিট পর বাঁ দিক থেকে সাকার বাড়ানো বল ফাঁকায় পেয়ে প্লেসিং শটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান এই ফরোয়ার্ড।

৪৩তম মিনিটে সফল স্পট কিকে স্কোরলাইন ৩-২ করেন জেমস মিলনার। ১৬ বছর বয়সী মিডফিল্ডার হার্ভে এলিয়ট ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টিটি পেয়েছিল লিভারপুল। দ্বিতীয়ার্ধের নবম মিনিটে মিলনারের হাস্যকর ভুলে আবারও গোল খেয়ে বসে প্রিমিয়ার লিগে এখন পর্যন্ত অপরাজিত লিভারপুল। তার গোলরক্ষককে বাড়ানো দুর্বল ব্যাকপাসে ছুটে গিয়ে টোকা দেন এইন্সলি মেইটল্যান্ড-নাইলস। বল দূরের পোস্ট ঘেঁষে চলে যাচ্ছিল বাইরে, দ্রুত গিয়ে গোলমুখে বল ফেরত পাঠান মেসুত ওজিল। অনায়াসে বাকিটুকু সারেন ইংলিশ মিডফিল্ডার মেইটল্যান্ড-নাইলস।

চার মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে সমতায় ফেরে ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা। ৫৮তম মিনিটে প্রায় ২২ গজ দূর থেকে বুলেট গতির শটে লিভারপুলের তৃতীয় গোলটি করেন অ্যালেক্স-অক্সলেইড চেম্বারলেইন। ৬২তম মিনিটে সতীর্থের পাস ধরে শরীরটাকে ঘুরিয়ে জোরালো শটে স্কোরলাইন ৪-৪ করেন বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড দিভোক ওরিগি। বল গোলরক্ষকের হাতে লেগে জালে জড়ায়।

৭০তম মিনিটে ম্যাচে দ্বিতীয়বারের মতো এগিয়ে যায় আর্সেনাল। বল পায়ে মাঝ বরাবর বেশ খানিকটা এগিয়ে গিয়ে জোরালো উঁচু শটে ক্রসবার ঘেঁষে ঠিকানা খুঁজে নেন ২০ বছর বয়সী মিডফিল্ডার জো উইলক। নির্ধারিত সময় পেরিয়ে ম্যাচ যোগ করা সময়ে গড়ালে লিভারপুল সমর্থকদের মনে নিশ্চয়ই হারের শঙ্কা জেগে উঠেছিল। তবে একেবারে শেষ মুহূর্তে ওরিগির গোলে রক্ষা পায় লিভারপুল। ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। যেখানে নায়ক গোলরক্ষক কেলেহার। দানি সেবাইয়োসের শট ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। বিপরীতে লিভারপুলের পাঁচ শট নেওয়া সবাই লক্ষ্যভেদ করেন।

শেষ ষোলোর আরেক ম্যাচে চেলসিকে তাদেরই মাঠে ২-১ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ইউনাইটেডও পৌছে গেছে শেষ আটে। আর মঙ্গলবার সাউথ্যাম্পটনকে ৩-১ গোলে হারিয়ে শেষ আটে উঠেছে ম্যানচেস্টার সিটিও।

আরও পড়ুনঃ

ফাইনালে জামাল ভুঁইয়াদের প্রতিপক্ষ টেরেঙ্গানু

মেসিময় ম্যাচে বার্সার বড় জয়

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ২১তম সেঞ্চুরি আশরাফুলের

বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯

জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডে চাকরি পেলেন মাসাকাদজা

জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও ওপেনিং ব্যাটসম্যান হামিল্টন মাসাকাদজাকে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ড ডিরেক্টর অব ক্রিকেট বা ক্রিকেট পরিচালক পদে নিযুক্ত করেছে। গত মাসেই বাংলাদেশ সফরে ক্রিকেট থেকে অবসর নেন মাসাকাদজা এবং ১ নভেম্বর থেকেই নতুন পদে কাজ শুরু করবেন তিনি।

গত আগস্ট মাসেই ডিরেক্টর অব ক্রিকেট নামের নতুন পদ তৈরি করে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ড। কিছুদিন আগে জিম্বাবুয়ের পুর্ণ সদস্যতা বাতিল করে ফেলে আইসিসি। জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটে সরকারের হস্তক্ষেপের কারণেই মুলত আইসিসি এমন পদক্ষেপ নেয়। এরপর আবারও পুর্ণ সদস্যতা ফিরে পায় জিম্বাবুয়ে। জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের সুদিন ফেরাতেই তাই নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ড। আর এজন্য জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট পরিচালকের দায়িত্ব পেয়েছেন মাসাকাদজা।


জিম্বাবুয়ে তাদের সর্বশেষ ত্রিদেশীয় সিরিজে র‍্যাংকিংয়ে ২২তম দল সিঙ্গাপুরের কাছেও হেরেছে। এমনকি পয়েন্ট টেবিলের সবচেয়ে নিচে থেকে সিরিজ শেষ করেছে তাঁরা। এর আগে বাংলাদেশে অনুষ্টিত ত্রিদেশীয় সিরিজেও পয়েন্ট টেবিলের শেষে ছিল তাঁরা। ৪ ম্যাচের মধ্যে জিতেছে একটিতে, আফগানিস্তানের বিপক্ষে।

অজিদের সাথে পাত্তাই পেলো না শ্রীলঙ্কা!

স্টিভেন স্মিথ

প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ১৩৪ রানের বড় ব্যাবধানে হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। আজ দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৪২ বল হাতে রেখে ৯ উইকেটের বিশাল জয় পেয়েছে অজিরা। আর এই জয়ে তিন ম্যাচ সিরিজ ২-০ তে জিতে গেল অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ম্যাচে লঙ্কানরা অলআউট হয়েছিল ৯৯ রানে, আর আজ অলআউট হয়েছে ১১৭ রানে।
টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে লঙ্কানরা শুরুতেই হারায় কুশাল মেন্ডিসের উইকেট। মাত্র ১ রান করে রান আউট হয়ে ফেরেন মেন্ডিস। শ্রীলঙ্কার হয়ে সর্বোচ্চ ২৭ রান করেছেন কুশল পেরেরা। ২১ রান এসেছে দানুশকা গুনাথিলাকার ব্যাট থেকে। আভিষ্কা ফার্নান্দো করেছেন ১৭ রান। এ ছাড়া ওয়ানিদু হাসরঙ্গা, ইসুরু উদানা এবং লক্ষ্মণ সান্দাকান এই তিনজনই ১০ রান করে যোগ করেছেন। তাঁরা ইনিংস বড় করতে না পারায় ১৯ ওভারে লঙ্কানদের ইনিংস গুটিয়ে যায় ১১৭ রানে। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে বিলি স্ট্যানলেক, প্যাট কামিন্স, অ্যাস্টন অ্যাগার এবং অ্যাডাম জাম্পা প্রত্যেকেই ২টি করে উইকেট নিয়েছেন।

১১৮ রানের সহজ লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই অজি শিবিরে আঘাত হানেন লাসিথ মালিঙ্গা। প্রথম ওভারের ৩য় বলেই তুলে নেন অ্যারন ফিঞ্চের উইকেট। কিন্ত এর পরে আর কোন উইকেটই শিকার করতে পারেনি লঙ্কান বোলাররা। মালিঙ্গা প্রথম ওভারে দেন মাত্র ১ রান। এরপর পাওয়ারপ্লের বাকি পাঁচ ওভারে আসে ৫৭ রান। এরপর ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার এবং স্টিভেন স্মিথের দৃঢ় ব্যাটিংয়ে ১৩ ওভারেই জয় পায় অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৪১ বলে ৬০ রান করে অপরাজিত ছিলেন ওয়ার্নার। স্মিথ অপরাজিত ছিলেন ৩৬ বলে ৫৩ রান করে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
শ্রীলঙ্কাঃ ১৯ ওভারে ১১৭/১০ (গুনাথিলাকা ২১, ফার্নান্দো ১৭, পেরেরা ২৭; জাম্পা ২/২০, স্ট্যানলেক ২/২৩)
অস্ট্রেলিয়াঃ ১৩ ওভারে ১১৮/১ (ওয়ার্নার ৬০*, স্মিথ ৫৩*; মালিঙ্গা ১/২৩)

আরও পড়ুনঃ

এমসিসি ক্রিকেট কমিটি থেকে পদত্যাগ করলেন সাকিব

সাকিবকে ছাড়াই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ!

রিয়াদ-মুশফিকদের উপর হতে পারে জঙ্গি হামলা!

ফাইনালে জামাল ভুঁইয়াদের প্রতিপক্ষ টেরেঙ্গানু


শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের প্রথম সেমিফাইনালে ভারতের গোকুলাম কেরেলা এফসিকে ৩-২ গোলে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে চট্টগ্রাম আবাহনী। এবার ফাইনালে তাদের সঙ্গী হল মালয়েশিয়ার ক্লাব টেরেঙ্গানু এফসি। লি টাকের হ্যাটট্রিকে ভারতের মোহনবাগানকে হারিয়েছে টেরেঙ্গানু।


চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে ৪-২ গোলে ‘এ’ গ্রুপের রানার্সআপ মোহনবাগানকে হারায় ‘বি’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন টেরেঙ্গানু। আগামী বৃহস্পতিবার শিরোপা লড়াইয়ে টেরেঙ্গানুর মুখোমুখি হবে ২০১৫ সালের চ্যাম্পিয়ন চট্টগ্রাম আবাহনী। ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা ৬ টায়।

টেরেঙ্গানু এফসি ও মোহনবাগানের মধ্যকার দ্বিতীয় সেমিফাইনালের ৩৯তম মিনিটে টেরেঙ্গানুকে এগিয়ে নেন লি টাক। ২০ গজ দূর থেকে দারুণ ফ্রি কিকে জাল খুঁজে নেন এই ইংলিশ মিডফিল্ডার। দুই মিনিট পরই হাভিয়ের মুনোস স্পট কিকে মোহনবাগানকে সমতায় ফেরান। ৫৯তম মিনিটে ৩০ গজ দূর থেকে আবারও চোখ ধাঁধানো বাঁকানো ফ্রি কিকে টেরেঙ্গানুকে এগিয়ে নেন লি টাক। ৬১ মিনিটে সতীর্থের ফ্রি কিকে দূরের পোস্টে থাকা মুনোস হেডে আই-লিগের ২০১৪-১৫ মৌসুমের চ্যাম্পিয়নদের সমতায় ফেরান।


৭৫তম মিনিটে সতীর্থের লম্বা করে বাড়ানো বল ধরে দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে টেরেঙ্গানুকে আবারও এগিয়ে নেন শাইফিক বিন ইসমাইল। চার মিনিট পর পেনাল্টি থেকে হ্যাটট্রিক পূরণের সঙ্গে দলের জয় নিশ্চিত করেন লি টাক। ডি-বক্সে ব্রুনোকে গোলরক্ষক ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। এ নিয়ে টানা দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিক উপহার দেওয়া লি টাক ৬ গোল নিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে আছেন।

আরও পড়ুনঃ

দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন সাকিব

ভারত সফরের টেস্ট স্কোয়াডে একাধিক চমক

এমসিসি ক্রিকেট কমিটি থেকে পদত্যাগ করলেন সাকিব

মেসিময় ম্যাচে বার্সার বড় জয়

এমসিসি ক্রিকেট কমিটি থেকে পদত্যাগ করলেন সাকিব


আইসিসির দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা পাওয়ার পর এমসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটি থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন সাকিব আল হাসান। সাকিব তিন তিনটে বার ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পাওয়ার পরও বিষয়টি আইসিসির দুর্নীত দমন ইউনিটকে না জানানোর কারণে মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সাকিবকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা। তবে দোষ স্বীকার করায় এক বছরের শাস্তি স্থগিত থাকবে। ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত কোন ধরনের ক্রিকেট খেলতে পারবেন না সাকিব। সাকিবে নিষেধাজ্ঞার খবরের কয়েক ঘণ্টা পরেই মেরিলিবোর্ন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি) এক বিবৃতিতে সাকিবের সরে দাঁড়ানোর খবর দেয়।


২০১৭ সালে অক্টোবরে এই কমিটিতে জায়গা করে নিয়েছিলেন সাকিব। সিডনি ও বেঙ্গালুরুতে হওয়া কমিটির সভায় উপস্থিত ছিলেন বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার। প্রতি বছর দুই বার করে সভা হয় এই কমিটির। এর পরবর্তী সভা হবে ২০২০ সালের মার্চে, শ্রীলঙ্কায়।

২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এমসিসি ক্রিকেট কমিটিতে থাকেন বর্তমান ও সাবেক ক্রিকেটার ও আম্পায়াররা। ক্রিকেটের প্রাসঙ্গিক অনেক কিছু নিয়ে আলোচনা করে এই কমিটি। সমসাময়িক ক্রিকেটের আইন-কানুনসহ নানা পরিবর্তন ও ক্রিকেটের ভালো-মন্দ নিয়ে সুপারিশ করে আইসিসিকে। কমিটি থেকে সাকিবকে হারাতে হওয়ায় দু:খপ্রকাশ করেছেন এই কমিটির চেয়ারম্যান মাইক গ্যাটিং। তবে এটা সঠিক সিদ্ধান্ত বলেও মনে করেন সাবেক ইংলিশ এই ব্যাটসম্যান।

আরও পড়ুনঃ

দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন সাকিব

সাকলাইন-সানজামুলের ঘুর্ণিতে রাজশাহীর ৬ রানের জয়

ভারত সফরের টেস্ট স্কোয়াডে একাধিক চমক

মেসিময় ম্যাচে বার্সার বড় জয়

লিওনেল মেসির জাদুকরী ফুটবলে দুর্দান্ত এক জয় পেল বার্সেলোনা। কাম্প নউয়ে মঙ্গলবার রাতে লা লিগায় রিয়াল ভাইয়াদলিদকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বার্সেলোনা। এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ফিরেছে এরনেস্তো ভালভেরদে শিষ্যরা।

দুই সতীর্থকে দিয়ে গোল করানোর মাঝে মুগ্ধতা ছড়ালেন অবিশ্বাস্য ফ্রি কিকে, করেন আরও এক গোল। ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই গোলের দেখা পায় বার্সেলোনা। কয়েক জনের পায়ে লেগে ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে জোরালো শট নেন ক্লেমোঁ লংলে। বল প্রতিপক্ষের একজনের পায়ে লেগে কিছুটা দিক পাল্টে জালে জড়ায়।


পঞ্চদশ মিনিটে বাঁ দিক থেকে স্প্যানিশ মিডফিল্ডার মিচেলের ডান পায়ের ক্রসে আপাত কোনো বিপদের শঙ্কা ছিল না। তবে শেষ মুহূর্তে বাঁক খাওয়া বল বুক দিয়ে ঠেকিয়ে বিপদ ডেকে আনেন গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। ফাঁকায় বল পেয়ে হাঁটু দিয়ে ঠিকানায় পাঠান স্প্যানিশ ডিফেন্ডার কিকো।

২৯ মিনিটে প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে অসাধারণ এক চিপে ছোট ডি-বক্সের মুখে বল বাড়ান মেসি, আর দারুণ ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন ভিদাল। এই গোলের রেশ কাটতে না কাটতেই মেসির অবিশ্বাস্য ফ্রি কিক। ২৭ গজ দূর থেকে নেওয়া মেসির শটে একেবারে পোস্ট ঘেঁষে বল জড়ায় জালে। এই নিয়ে লিগে টানা তিন ও সব প্রতিযোগিতা মিলে টানা চার মাচে গোল করলেন আর্জেন্টাইন তারকা। 

৭৫তম মিনিটে আবারও মেসির কারিশমা। ইভান রাকিতিচের বাড়ানো বল ঊরু দিয়ে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে প্লেসিং শটে নিজের দ্বিতীয় ও দলের চতুর্থ গোলটি করেন এবারের ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার। মৌসুমে তার মোট গোল হলো চারটি।


৭৭ মিনিটে লুইস সুয়ারেসের গোলের উৎসও মেসি। অধিনায়কের রক্ষণচেরা পাস ডি-বক্সে পেয়ে স্কোরশিটে নাম লেখান উরুগুয়ের স্ট্রাইকার। আসরে এটা তার ষষ্ঠ গোল।

১০ ম্যাচে সাত জয় ও এক ড্রয়ে শীর্ষে ফেরা বার্সেলোনার পয়েন্ট ২২। দ্বিতীয় স্থানে নেমে যাওয়া গ্রানাদার পয়েন্ট ২০। আতলেতিকো মাদ্রিদ ১১ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে আছে তৃতীয় স্থানে।

আরও পড়ুনঃ 

টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে এসেছে তিন পরিবর্তন

সাকিবকে ছাড়াই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ!

টানা দুই সেঞ্চুরি হাকালেন এনামুল হক বিজয়

মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯

ভারত সফরের টেস্ট স্কোয়াডে একাধিক চমক, অধিনায়ক মমিনুল

ভারতের বিপক্ষে দুই টেস্টের জন্য ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কারণে সাকিব আল হাসান না থাকায় টেস্ট দলের অধিনায়কত্ব করবেন মমিনুল হক। টেস্ট স্কোয়াডে প্রথমবারের মতো ডাক পেয়েছেন সাইফ হাসান। তাছাড়া, ৫ বছর পর টেস্ট দলে ফিরেছেন আল আমিন হোসেন।
আসন্ন এই সিরিজে ভারতের বিপক্ষে ৩টি টি-টোয়েন্টি এবং ২টি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ দল। সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে ভারত সফরে যাচ্ছেন না তামিম ইকবাল। তাঁর বদলে জায়গা পেয়েছেন আরেক বাঁহাতি ওপেনার ইমরুল কায়েস।

ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফর্মের ফলাফল পেয়েছেন তরুণ ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান। চলমান জাতীয় ক্রিকেট লীগেও ২২০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছেন তিনি। অনুর্দ্ধ-১৯ দলের অধিনায়কের দায়িত্বও পালন করেছেন সাইফ।

সাইফ হাসান

আগামী ৩ নভেম্বর শুরু হবে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার ৩ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজটি। এরপর ১৪ই নভেম্বর শুরু হবে সিরিজের প্রথম টেস্ট। ২২ নভেম্বর ইডেন গার্ডেন্সে শুরু হবে দ্বিতীয় টেস্ট।
টেস্ট স্কোয়াডঃ সাদমান ইসলাম, ইমরুল কায়েস, সাইফ হাসান, মুমিনুল হক, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ মিঠুন, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মোহাম্মদ নাঈম, মুস্তাফিজুর রহমান, আল আমিন হোসেন, আবু জায়েদ, এবাদত হোসেন।

আরও পড়ুনঃ

টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে এসেছে তিন পরিবর্তন

সাকিবকে ছাড়াই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ!

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ২১তম সেঞ্চুরি আশরাফুলের

টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে এসেছে তিন পরিবর্তন

আগামী ৩০ অক্টোবরেই ভারত সফরের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সেই সফরের জন্য এর আগেই ঘোষণা করা হয় টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড। তবে সেই স্কোয়াডে থেকে বাদ পড়েছেন সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন।
আইসিসির দুর্নীতি দমন কমিশন আকশুর নিয়ম লঙ্ঘনের কারণে ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছেন সাকিব আল হাসান। আর তাই ভারত সফরেও খেলতে পারবেন না বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। এমনকি ২০২০ সালের টি-২০ বিশ্বকাপেও খেলতে পারবেন না তিনি। ব্যাক্তিগত কারণে তামিম ইকবালও ছুটি নিয়েছেন এই সিরিজ থেকে। চোটের কারণে নেই সাইফুদ্দিন।

পড়ুনঃ সাকিবকে ছাড়াই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ!

তামিম ইকবালের জায়গায় দলে সুযোগ পেয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন। সাইফুদ্দিনের বদলে খেলবেন বাঁহাতি পেসার আবু হায়দার রনি এবং সাকিবের জায়গায় ডাক পেয়েছেন তাইজুল ইসলাম। অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করবেন রিয়াদ। টেস্টে বাংলাদেশ দলের অধিনায়কত্বের পাশাপাশি বিপিএলেও অধিনায়কত্ব করেছেন তিনি।

ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি ম্যাচ তিনটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩, ৭ ও ১০ নভেম্বর। ম্যাচগুলোর ভেন্যু যথাক্রমে দিল্লী, রাজকোট ও নাগপুর। ১৪ ও ২২ নভেম্বর ইনডোর ও কলকাতায় শুরু হবে টেস্ট দুটি।

বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের টি-২০ স্কোয়াডঃ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), লিটন দাস, সৌম্য সরকার, নাইম শেখ, মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন,মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, আরাফাত সানি, আল আমিন হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, শফিউল ইসলাম, আবু হায়দার রনি ও তাইজুল ইসলাম।

আরও পড়ুনঃ 

ভারত সফরের টেস্ট স্কোয়াডে একাধিক চমক

সাকিবকে ছাড়াই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ!

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ২১তম সেঞ্চুরি আশরাফুলের